• শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০৩:২২ পূর্বাহ্ন
  • Admin Login
শিরোনাম
যশোর সদর উপজেলা রূপদিয়া প্রেসক্লাবে দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। যশোর জেলার সদ্য অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সার্কেল খ “হয় আমি থাকবো” না হয় মাদক সন্ত্রাস চাঁদাবাজ থাকবে। উপজেলা প্রেস ক্লাব এর কমিটি গঠন মনিরুল সভাপতি,রফিকুল সেক্রেটারি যশোরের ফরিদপুর মসজিদের উন্নয়নের জন্য অনুদান দিলেন চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান। মির্জাগঞ্জে ১ কোটি টাকার নিষিদ্ধ পলিথিন জব্দ,৩ ব্যবসায়ীকে জরিমানা যশোর জেলার এসপি মহাদয় সদ্য ৩ অতিরিক্ত পুলিশ সুপারকে ফুলের শুভেচ্ছা জানান। যশোরে হত্যা মামলায় যুবদলের সম্পাদকসহ ৪ জনকে আটক করেছে কোতয়ালি পুলিশ। যশোরে সড়ক দুর্ঘটনায় রেলগেট মডেল জামে মসজিদের ইমাম নিহত হন। যশোর জেলার প্রতিটা থানায় অসাধু ব্যাবসায়ি সিন্ডিকেট কেজি দরে বিক্রয় করছেন তরমুজ।

যশোর সদর উপজেলার নরেন্দ্রপুর গ্রামে এস.এস.সি পরীক্ষার্থী মেধাবী ছাত্রীর আত্মহত্যা।

Avatar
dainik amar digantor / ৭৩৯ বার
প্রকাশ হয়েছে : সোমবার, ৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

যশোর সদর উপজেলার নরেন্দ্রপুর গ্রামে এস.এস.সি পরীক্ষার্থী মেধাবী ছাত্রীর আত্মহত্যা।

 

শিমুলইসলাম,দৈনিক,আমার,দিগন্তরঃযশোর: অনেক স্বপ্ন নিয়ে সামনের এস.এস.সি পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল মেধাবী ছাত্রী মিম আর সেই মুহুর্তে সে প্রেমে পড়ে, সেই প্রেমের কারণে জীবন দিতে হলো তার। ঘটনাটি ঘটেছে যশোর সদর উপজেলার নরেন্দ্রপুর গ্রামে। জানা যায় নরেন্দ্রপুর গ্রামের ফজলু শেখের ছোট মেয়ে মিম (১৫) তার নিজ ঘরের দরজা বন্ধ করে রোববার দুপুরের সময় গলায় শাড়ী পেচিয়ে ঘরের আড়ায় ঝুলে আত্মহত্য করেছে।মিম নরেন্দ্রপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী। তার পরিবারের সদস্যরা জানায় সে অসুস্থ্য থাকার কারণে আত্মহত্যা করেছে। কিন্তু ঐ এলাকার লোকজন জানায় প্রেমের সম্পর্কের কারণে মিম আত্মহত্য করেছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকার একাধিক ব্যাক্তি জানায় শেখ ইকবলের বখাটে ছেলে ইসলাম এর সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ছেলে বেকার ও বখাটে হওয়ার কারনে মেয়ের পরিবার মেনে নিতে চায়নি। মেয়েটির পরিবারের চোখ আড়াল করে সম্পর্ক চালিয়ে যাচ্ছিল। ঘটনার আগের দিন রাতে মেয়েটির সঙ্গে দেখা করতে আসে বখাটে ইসলাম। মেয়ের পরিবার জেনে গেলে দৌড়ে পালায় বখাটে ইসলাম। এই নিয়ে মিমকে বকাবকি করে তার পরিবার। সেই খোবে একটি চিরকুট লিখে আত্মহত্যা করে মিম। চিঠির কিছু অংশ তুলে ধরা হলো “ হায়রে কপাল, আমি নাকি খারাপ। জীবনে এত সুখ রাখার জায়গা নেই। আব্বু আমি তোমাকে অনেক ভালবাসতাম। আর কোনদিন তোমার সম্মান নিয়ে কোন কথা বলবে না কেউ। আব্বু আমি সতীনারী। আমি ইসলামকে খুব ভালবাসি।” মিমের চাচা রবিউল ইসলাম প্রথমে টের পেয়ে ঘরের দরজা ভেঙ্গে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। উক্ত ঘটনার কথা শুনে কোতয়ালী মডেল থানার ওসি মনিরুজ্জামান ও নরেন্দ্রপুর পুলিশ ক্যাম্পের আইসি সুপ্রভাত মন্ডল ঘটনা স্থানে যায় ও লাশ উদ্ধার করেন।


এ জাতীয় আরো খবর

error: Content is protected !!
error: Content is protected !!